Archive for September, 2016

সূর্যমুখী পাকন পিঠা রেসিপি

September 30, 2016 7:33 pm
সূর্যমুখী পাকন পিঠা রেসিপি

সূর্যমুখী পাকন পিঠা রেসিপি - sunflower-pitha-bangla-recipe

সূর্যমুখী পাকন পিঠা রেসিপি

রেসিপি ও ছবিঃ মুহসিনা তাবাসসুম

উপকরনঃ

    • মুগ ডাল – ৩/৪কাপ ( ৪ ভাগের ৩ ভাগ)
    • মুসুরির ডাল – ১/৪ কাপ
    • চালের আটা – পরিমান মত
    • ডিম – ১ টি (মাঝারি )
    • লবন – সামান্য
    • হলুদ- খুবই সামান্য (কালারের জন্য)

সিরার জন্য :-

    • চিনি – স্বাদ অনুযায়ী
    • পানি – পরিমান মতো
    • এলাচ- ২-৩ টি

– সব এক সাথে জ্বাল দিন।

– সিরাটা পাতলাও হবেনা আবার ঘনও হবে না ।

– চালের অন্যান্য পিঠাতে সিরা যে ভাবে করতে হয় সেভাবে করলেই হবে।

– হাল্কা মিষ্টি খেলে সিরা হালকা করে করলেও হবে । বেশি খেলে মধুর মত ঘন করে নিবেন ।

প্রনালি :-

– ডাল ধুয়ে চালের আটা বাদে সব উপকরন প্রেশার কুকারে দিয়ে দিন । পানি হাতের তিন কর পরিমানে দিতে হবে ।

– কয়েকটি শিটি দেয়ার পরে ডাল সিদ্ধ হয়ে গলে গেলে চালের আটা দিয়ে দিন । ডাল গলে না গেলে আরো কয়েকটি শিটি দিন ।

– ডো টা চালের আটার রুটির মতো হবে । বেশি নরম হবে না ।

– জ্বাল অল্প আঁচে রেখে ভাল করে মিক্স করে কিছুক্ষন ঢেকে রাখুন । ৪-৫ মিনিট পরে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন ।

– খুব ভাল করে ময়ান দিন । সাথে ডিম মিক্স করে নিন । ডো বেশি নরম হলে ডিম ছোট সাইজের নিবেন । ভাল করে মিক্স করা হয়ে গেলে পিড়িতে মোটা করে রুটি বেলে নিন।

– এবার নিচের পছন্দ মতো শেপে কেটে খেজুরের কাটা , সুই বা কাঠি দিয়ে ভিতরে ফুল লতাপাতা এঁকে নিন । এবার এই ফুল পাতা খুচিয়ে খুচিয়ে পাপড়ি তুলুন বা খুচিয়ে দিন ।

– এভাবে করলে ভাল ভাবে ভাজা হয় আর পিঠা মচমচা হয় ।

– এবার ডূবো তেলে মাঝারি আঁচে সোনালী কালার করে ভেজে নিন । সিরা কুসুম গরম করে নিয়ে তাতে কয়েকটি পিঠা এক সাথে ছেড়ে কিছুক্ষন রেখে দিন ।

– কিছু সময় পরে একটি ছাকনির উপরে পিঠা গুলো তুলে রাখুন । এতে করে বাড়তি সিরা ঝরে যাবে ।

– এবার ঠাণ্ডা করে এয়ার টাইট বক্সে ভরে রেখে দিন । তাহলে বেশ কয়েক ঘন্টা মুচমুচা থাকবে ।

সূর্যমুখী পাকন পিঠা রেসিপি

টিপস :-

*হলুদ দিতে না চাইলে । সামান্য হলুদ ফুদ কালার বা জাফরান দিতে পারেন।

পরিবেশন :-

গরম গরম পরিবেশন করুন ।

রেসিপি ভিডিও

মেকআপ সম্পর্কে কিছু ভুল ধারণা ও প্রকৃত সত্য

3:34 am
মেকআপ সম্পর্কে কিছু ভুল ধারণা ও প্রকৃত সত্য

মেকআপ সম্পর্কে কিছু ভুল ধারণা ও প্রকৃত সত্য - idea-about-makeup-bangla

মেকআপ সম্পর্কে কিছু ভুল ধারণা ও প্রকৃত সত্য

নিজেকে সুন্দর দেখাতেই মেকআপের অবতারণা। মেকআপের শুরুটা হয়েছিল মিশরীয়দের হাত ধরে। রাজকীয় নারীরা নিজেদের আলাদা দেখাতে ব্যবহার করতেন নানা রকম রঙ। যুগে যুগে মেকআপের ধরন বদলেছে। বদলেছে মেকআপের উপাদান, স্টাইল ও ট্রেন্ড। সেই সাথে যোগ হয়েছে মেকআপ করার কলা-কৌশল সম্পর্কে কিছু ভুল ধারণা।

জেনে নিন সেই ভুল ধারণাগুলো এবং সঠিক কৌশল।

ফাউন্ডেশন

ভুল ধারণা: ফাউন্ডেশনের আগে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হয়।
প্রকৃত সত্য: ত্বক শুষ্ক প্রকৃতির হলে তবেই ফাউন্ডেশন লাগানোর আগে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন। স্বাভাবিক ও তৈলাক্ত ত্বকে প্রথমে অ্যাসট্রিনজেন্ট লোশন বা স্কিন টনিক লাগান। তারপর কয়েক মিনিট অপেক্ষা করে ফাউন্ডেশন লাগান।

ভুল ধারণা: নর্মাল স্কিন কালারের চেয়ে হালকা ফাউন্ডেশন ব্যবহার করলে ফর্সা দেখায়।
প্রকৃত সত্য: নর্মাল স্কিন কালারের চেয়ে হালকা নয় বরং স্কিন কালারের কাছাকাছি ফাউন্ডেশন ব্যবহার করুন। এতে সহজে ত্বকের সাথে ফাউন্ডেশন মিশে যাবে। ত্বক উজ্জ্বল রাখার জন্য ব্রোঞ্জার বা ব্লাশ ব্যবহার করুন।

কনসিলার

ভুল ধারণা: কনসিলার পুরোপুরিভাবে ত্বকের দাগ দূর করে।
প্রকৃত সত্য: কনসিলার কালো দাগ বা ছোপ হালকা করতে সাহায্য করে। দাগ ঢেকে রাখার জন্য ফাউন্ডেশন ভালো কাজ করে। এক শেড হালকা ফাউন্ডেশন নিয়ে দাগের ওপর লাগান। সারা মুখে লাগানোর দরকার নেই, শুধু দাগের ওপর লাগান। কয়েক মিনিট অপেক্ষা করার পর নর্মাল ফাউন্ডেশন লাগান।

পাউডার

ভুল ধারণা: গরমের সময় তেলতেল ভাব কমাতে প্রচুর পরিমাণে কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহার করতে হয়।
প্রকৃত সত্য: কমপ্যাক্ট পাউডার তেলভাব কম রাখে। তবে অল্প পরিমাণে ব্যবহার করুন। অতিরিক্ত পাউডার তুলো দিয়ে ঝেড়ে ফেলুন। অতিরিক্ত পাউডার লাগালে ত্বক ঘেমে যেতে পারে। ঘামের ওপর পাউডার জমে সাদা সাদা দেখাবে।

ভুল ধারণা: গরমে ত্বকের জন্য ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার বা বেবি পাউডার ভালো।
প্রকৃত সত্য: ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার সব ধরনের ত্বকের জন্য উপযুক্ত নয়। এর পরিবর্তে টিন্টেড পাউডার ব্যবহার করুন। ব্রোঞ্জিং পাউডারও ব্যবহার করতে পারেন।

চোখের মেকআপ

ভুল ধারণা: আইলিডে ফাউন্ডেশন লাগালে মেকআপ বেশিক্ষণ থাকে।
প্রকৃত সত্য: চোখের উপরের পাতার অংশ পাতলা ও নরম হয়। ফাউন্ডেশন ব্যবহার করলের চোখের পাতার উপরে অংশের ত্বকে ভাঁজ পড়তে পারে।

ভুল ধারণা: চোখ বড় দেখানোর জন্য চোখের ভেতরের কোণার অংশ থেকে আইলাইনার লাগাতে হয়।
প্রকৃত সত্য: আইলাইনার চোখের ভেতরের কোণার অংশ থেকে লাগাবেন না। ইনফেকশন হতে পারে। চোখের পাতার ওপরের অংশে ও নিচের পাতার অংশে আইলাইনার লাগান। এতে চোখও ভালো থাকবে, বড়ও দেখাবে।

ঠোঁটের মেকআপ

ভুল ধারণা: গরমের সময় প্যাস্টেল বা হালকা লিপস্টিক ব্যবহার করা উচিত।
প্রকৃত সত্য: প্যাস্টেল শেডের লিপস্টিক গরমের সময় ন্যাচারাল ইফেক্ট তৈরি করে ঠিকই, তবে উজ্জ্বল রঙও ভালো লাগে। গায়ের রঙ চাপা হলে উজ্জ্বল রঙের লিপস্টিক ব্যবহার করতে পারেন।

ভুল ধারণা: ন্যাচারাল লিপ লাইনের বাইরে আউটলাইন করলে ঠোঁট বড় দেখায়।
প্রকৃত সত্য: ন্যাচারাল লিপলাইনের বাইরে আউটলাইন করার জন্য এক্সপার্ট মেকআপ আর্টিস্টের সাহায্য প্রয়োজন। ঠোঁট বড় বা ফোলা দেখাতে চাইলে হালকা ও গ্লসি লিপ কালার ব্যবহার করুন। শুধু লিপ গ্লসও ব্যবহার করতে পারেন। ঠোঁট পাতলা হলে ডার্ক কালার এড়িয়ে চলুন।

পরামর্শ দিয়েছেন –
কাজী যূথী
রূপ বিশেষজ্ঞ
যূথী’স বিউটি কেয়ার স্টুডিও

দইয়ের স্বাদে ডিম ভুনা

3:12 am
দইয়ের স্বাদে ডিম ভুনা

দইয়ের স্বাদে ডিম ভুনা - doi-dim-vuna

দইয়ের স্বাদে ডিম ভুনা

রেসিপি: তানিয়া ইসলাম

সময়ঃ ৩০ মিনিট

উপকরনঃ

    • সিদ্ধ ডিম ৮টি
    • পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ
    • আদা রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ
    • হলুদ গুড়ো ১ চা চাম‌চের একটু কম
    • মরিচ গুড়ো ১ চা চামচ
    • জিরা গুড়ো ১ চা চামচ
    • টক-মিষ্টি দই ১ কাপ
    • দারচিনি, এলাচি, তেজপাতা ১ টি করে
    • তেল-লবন পরিমান মত
    • কাঁচামরিচ প্রয়োজনমত

প্রণালী :

প্রথমে ডিম এ হলুদ গুড়ো আর লবন মাখিয়ে প্যান এ হালকা তেলে একটু লাল করে ভেজে তুলে রাখুন।

এবার গরম তেলে পেয়াজ কুচি দিন পেয়াজ প্রায় বাদামী করে ভেজে তাতে একটু পানি দিয়ে দই ছাড়া সব আস্ত-গুড়ো মশলা দিয়ে ভালো করে নিন, কষানো মশলায় দই ভালো করে ফেটে দিন এবং আবার কষান এবার ডিম দিয়ে দিন এবং অল্প পানি দিয়ে ৫ মিনিটের জন্য ঢেকে দিন।

এবার কাঁচামরিচ দিয়ে নাড়াচাড়া করে ভুনা ভুনা করে নামান। গরম ভাত-রুটি-পোলাও ইত্যাদির সাথে পরিবেশন করুন।

    • আরো সুন্দর ও সুস্বাদু রেসিপি পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন। 

পিজ্জা কেক রেসিপি

2:52 am
পিজ্জা কেক রেসিপি

পিজ্জা কেক রেসিপি / Pizza Cake Bangla Recipe

পিজ্জা কেক রেসিপি / Pizza Cake Bangla Recipe

রেসিপি ও ছবিঃ সুমি’স কিচেন

উপকরনঃ

    • চেদার চিজঃ ১/২কাপ
    • ক্যাপসিকাম কুচিঃ১/৪ কাপ

খামির এর জন্যঃ

    • ৩ কাপ ময়দা
    • ১ কাপ কুসুম গরম দুধ,
    • ২ চা চামচ লবণ,
    • ৩ চা চামচ ইস্ট
    • ২ চা চামচ চিনি ,
    • ২ টেবিল চামচ তেল
    • কুসুম গরম পানি পরিমান মত।

সব শুকনো উপকরন এক সাথে মিশিয়ে এর ভিতরে তেল দিয়ে ভাল করে মিশাতে হবে। দুধ মিশাতে হবে। পরিমান মত পানি দিয়ে নরম খামির বানাতে হবে। তারপর ঢেকে গরম স্থানে ১ ঘন্টা রেখে দিতে হবে।

পিজ্জা কেক তৈরিঃ

খামির ফুলে উঠলে ৪ ভাগ করে নিতে হবে।

একটি গোল কেক প্যান নিয়ে কেক প্যান এর মাপের ৩ টি রুটি বানিয়ে নিতে হবে।রুটিগুলো ওভে্নে ১৯০ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপে ৫ মিনিট বেক করতে হবে।

কেক প্যানে তেল ব্রাশ করে বাকি খামির দিয়ে একটি লম্বা রুটি বেলে কেক প্যানের পাশ মুড়ে দিতে হবে।

কেক প্যানের ভিতরে একটি রুটি দিয়ে সস, চিজ আর ক্যাপসিকাম কুচি দিয়ে আর একটি রুটি দিয়ে ঢেকে এভাবে ৩টি লেয়ার করতে হবে। উপরের লেয়ারে বেশি চিজ দিয়ে কেক প্যানের পাশের বাড়তি রুটি দিয়ে কেক এর চারিদিকে মুড়ে দিতে হবে।
ওভে্নে ২০০ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপে ১৫ মিনিট বেক করতে হবে।

ম্যাগী নুডুলস তৈরি করুন খুব সহজেই

2:30 am
ম্যাগী নুডুলস তৈরি করুন খুব সহজেই

ম্যাগী নুডুলস তৈরি করুন খুব সহজেই - maggi-noodles-bangla-recipe

ম্যাগী নুডুলস তৈরি করুন খুব সহজেই

রেসিপি: তানিয়া ইসলাম

যেভাবে করবেন:

১ প্যাকেট ম্যাগী নুডুলস সিদ্ধ করে নিন।

এবার পরিমাণমত তেলে পরিমাণমত পেয়াজ ও কাচাঁ মরিচ দিয়ে অল্প ভেজে তাতে ডিম ভেঙ্গে দিন।

সিদ্ধ আলু, বরবটি আর গাজর দিয়ে অল্প ভেজে নিন।

তারপর নুডুলস আর ম্যাগী মশলাটা দিয়ে ২মিনিট ভেজে হাফ মাল্টার রস চিপে নুডুলসের উপর ‍দিয়ে নামিয়ে দিন ।

টিপসঃ

##যাদি সস ছাড়া খান তাহলে মাল্টার রস দিতে পারেন, আর সস দিয়ে খেতে পছন্দ করলে মাল্টা না দিলেও চলবে।

##যে কোন সবজি বা মাংস/চিংড়ি মাছ দিয়ে করতে পারেন।

    • আরো সুন্দর ও সুস্বাদু রেসিপি পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন। 

ওড়না দিয়ে হিজাব পরার ৪টি উপায়

2:18 am
ওড়না দিয়ে হিজাব পরার ৪টি উপায়

ওড়না দিয়ে হিজাব পরার ৪টি উপায় - orna-diye-hijab

ওড়না দিয়ে হিজাব পরার ৪টি উপায়

স্কার্ফ ছাড়াও জামার ওড়না কিংবা দোপাট্টা দিয়েও অনেক সহজেই হিজাব বানানো যায়। ওড়না দিয়ে হিজাব বানানোর ৪ টি কৌশল শিখে নিন ।

হিজাব পরার ভিডিও দেখতে নিচের ছবিতে ক্লিক করুন। 

স্টেপ ১ঃ প্রথমে একটি ওড়না নিয়ে মাথার উপরে বসাতে হবে। ওড়নার নিচের অংশ ডান সাইড ছোট, বাম সাইড বড় রাখতে হবে।

স্টেপ ২ঃ ওড়নার দুই সাইডের কোণা ঘাড়ের পেছনের অংশে নিয়ে পিন দিয়ে ভালো করে আটকাতে হবে।

স্টেপ ৩ঃ এবার পেছন থেকে ডান সাইডের ওড়নাটা সামনে আনুন।

স্টেপ ৪ঃ ওড়না ডান সাইড থেকে বাম সাইডে নিন।

স্টেপ ৫ঃ ওড়নার অংশটি কানের উপরে পিন দিয়ে ভালো ভাবে আটকিয়ে নিন।

স্টেপ ৬ঃ এবার বাম সাইডে থাকা ওড়নার অংশটি নিন।

স্টেপ ৭ঃ বাম সাইডের ওড়নার অংশ ওড়নার নিচ থেকে সরিয়ে ডান সাইডে আনুন।

স্টেপ ৮ঃ ডান সাইডে ওড়না এনে ওড়নার ভাঁজ খুলে ফেলুন। ছবির মত করে।

স্টেপ ৯ঃ এবার ওড়নার অংশটি উপরে তুলুন।

স্টেপ ১০ঃ ওড়নার অংশ উপরে তোলার পর হিজাবের প্রধান পার্টটা সামনে আনুন।

স্টেপ ১১ঃ ওড়নার বড় অংশ টুকু উপরে তুলে চুলের খোপা কভার করে আনতে হবে।

স্টেপ ১২ঃ প্রথমে কানের যে অংশে পিন লাগানো হয়েছিল, সেই অংশে বড় সাইডের ওড়না এনে বসাতে হবে।

স্টেপ ১৩ঃ কানের উপরে বাকি অংশের ওড়না কে পিন দিয়ে সুন্দর করে সেট করতে হবে।

Hijab Video:

ভেজিটেবল ও বিফের সাথে পাস্তা-নুডুলস

September 29, 2016 10:16 pm
ভেজিটেবল ও বিফের সাথে পাস্তা-নুডুলস

ভেজিটেবল ও বিফের সাথে পাস্তা-নুডুলস - pasta-noodles-recipe

ভেজিটেবল ও বিফের সাথে পাস্তা-নুডুলস

বাসায় রান্না করা মাংস আছে অথচ মাংসগুলো আর খেতে ইচ্ছা করছে না বা হুট করে মেহমান আসলো কিন্তু মাংস সিদ্ধ করার টাইম নাই তাহলে আমার এই পানির মত সহজ রেসিপি আসে না। চলুন দেখি কি করতে হবে।

রেসিপি ও ছবিঃ তানিয়া ইসলাম

উপকরণঃ

    • নুডুলস ১৫০ গ্রাম
    • পাস্তা ১০০ গ্রাম
    • রান্না করা গরু বা খাসীর মাংস ১ কাপ
    • বাধাকপি ও টমোটো ১কাপ
    • আস্ত বড় রসুন ১টি
    • পেয়াজ মোটা করে কাটা বড় একটা
    • সয়াসস ২ চা চামচ
    • কাচাঁ মরিচ চেরা ৩/৪টি
    • গোল মরিচ গুড়া সামান্য
    • লবন পরিমাণ মত
    • শশা শুকনো মরিচ ভাজা সাজানোর জন্য

প্রণালীঃ

পানি গরম করে তাতে একটু লবন দিয়ে পাস্তা ও নুডুলস সিদ্ধ করে নিন। পানি ঝড়িয়ে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন এতে করে পাস্তা-নুডুলস উপর থাকা ক্ষতিকর মোমের প্রলেপটি চলে যাবে।

পাত্রে তেল দিয়ে পেয়াজ অল্প ভেজে রান্না করা মাংস ও আস্ত রসুনের কোয়া গুলো দিয়ে ২/৩ মিনিট ভাজুন।

এরপর সবজি দিয়ে দিন,২/৩মিনিট সবজি ভেজে তাতে সয়াসস ২ চা চামচ, কাচাঁ মরিচ ও গোল মরিচ গুড়া সামান্য, লবন, পাস্তা ও নুডুলস দিয়ে নাড়তে হবে।

সবকিছু ভালো মত মিশে গেলে, লবন ঠিক আছে কিনা দেখে নামিয়ে শশা ও শুকনো মরিচ ভাজা দিয়ে সাজিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

    • আরো সুন্দর ও সুস্বাদু রেসিপি পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন। 

সিম বেগুন দিয়ে রুই মাছের ঝোল

5:38 am
সিম বেগুন দিয়ে রুই মাছের ঝোল

সিম বেগুন দিয়ে রুই মাছের ঝোল - shim-alu-diye-rui-mach

সিম বেগুন দিয়ে রুই মাছের ঝোল

শীতের সবজি এখন বাজারে! তাই মেনু তে রাখতে পারেন আলু সিম বেগুন দিয়ে রুই মাছের ঝোল। গরম ভাতে মাছের ঝোল এর কি যে অমৃত স্বাদ !

রেসিপি ও ছবিঃ সায়মা সুলতানা

উপকরণঃ

    • রুই মাছ টুকরা ৪ পিস
    • বেগুন আলু সিম পরিমান মত
    • পেয়াজ বাটা ১ চা চামচ
    • রসুন বাটা ১ চা চামচ
    • হলুদ মরিচ ধনিয়া জিরা গুড়া মিলে ১.৫ চা চামচ
    • পাঁচফোড়ন গুঁড়া ১ চা চামচ
    • ধনিয়া পাতা কুচি অল্প
    • লেবুর রস ২ চা চামচ
    • তেল ২ টেবিল চামচ
    • লবন স্বাদমত
    • কয়েকটা আস্ত কাচা মরিচ

প্রণালী:

প্রথমে মাছ গুলু কে অল্প হলুদ মরিচ গুড়া আর লবন দিয়ে মেখে হালকা তেল এ লাল করে ভেজে নিন।

এবার আরেকটা প্যান এ তেল দিয়ে তেল গরম হলে তাতে পেয়াজ, রসুন বাটা আর গুড়া মশলা গুলি, স্বাদমত লবন আর অল্প পানি দিয়ে মশলা কষিয়ে নিন।

এবার বেগুন আলু সিম দিয়ে সবজি নারাচারা করে রান্না করুন ১৫ মিনিট। সবজি সিদ্ধ হয়ে আসলে এতে ভাজা মাছের পিস গুলু দিন আর সাথে এক কাপ গরম পানি, পাঁচফোড়ন গুঁড়া আর উপরে কয়েকটা আস্ত কাচা মরিচ আর ধনিয়া পাতা কুচি ছিটিয়ে দিন। বেশি নারাচারা করবেন না এতে মাছের টুকরা গুলো ভেঙ্গে যেতে পারে। এভাবে রান্না করুন আরো ১০ মিনিট। নামানোর আগে লেবুর রস ছিটিয়ে দিন।

নামিয়ে গরম গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন এই ঝোল তরকারি। পাঁচফোড়ন গুঁড়া না দিয়ে আস্ত পাঁচফোড়ন তেলে ফুটিয়ে নিয়েও রান্নাটা করতে পারেন তবে দুইভাবেই স্বাদ ভালো হয়।

    • আরো সুন্দর ও সুস্বাদু রেসিপি পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন। 

বাড়তি ওজন দ্রুত কমিয়ে দেবে ৬টি শক্তিশালী জুস

5:27 am
বাড়তি ওজন দ্রুত কমিয়ে দেবে ৬টি শক্তিশালী জুস

বাড়তি ওজন দ্রুত কমিয়ে দেবে ৬টি শক্তিশালী জুস - loss-extra-weight-tips

বাড়তি ওজন দ্রুত কমিয়ে দেবে ৬টি শক্তিশালী জুস

যদিও ওজন কমানো খুব কঠিন একটি কাজ তবে কাজটি অসম্ভব নয়। সবচেয়ে বড় কথা কোন ধরনের ম্যাজিক দিয়ে ওজন কমানো সম্ভব না। এর জন্য প্রয়োজন জীবন যাত্রায় পরিবর্তন আনা যার ফলে আপনি আপনার ওজন কমানোর কাঙ্ক্ষিত স্বপ্ন পূরণ করতে পারবেন এবং শরীরের সুন্দর একটি গঠন পাবেন।

নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম ও একটি স্বাস্থ্যকর খাবার তালিকা অনুসরণ করার মাধ্যমে সঠিক উপায়ে শরীরের বাড়তি মেদ ঝড়ানো সম্ভব। এখানে ৬ টি স্বাস্থ্যকর পানীয়ের কথা জানাচ্ছি যা ওজন কমাতে সাহায্য করে-

১/ লেবুর শরবত –

অস্বীকার করার উপায় নেই যে ওজন কমানোর জন্য প্রথম যে পানীয়টির কথা মনে এসে সেটা হল লেবুর শরবত। সকালে খালি পেটে লেবুর শরবত ওজন কমানোর গতিতে ত্বরান্বিত করে, দেহকে দূষণ মুক্ত করতে সাহায্য করে এবং সারাদিন ঝরঝরে রাখে।

২/ গম পাতার রস –

শুনে হয়তো অনেকের অবাক লাগতে পারে কিন্তু এটি আমাদের দেহের জন্য খুবই উপকারী। দেহের দূষণ দূর করার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে গম পাতার রস খাওয়া যা দেহের ওজন কমাতে ঔষধের মত কাজ করে। এটি পটাসিয়ামে ভরপুর যা দেহের ক্যালরি বার্ন করতে সাহায্য করে এবং এতে আরো রয়েছে খাদ্যআঁশ যা পেট ভরা থাকার অনুভূতি দেয়।

৩/ ডালিমের জুস –

প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ এই পানীয়টি দেহের প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে। এছাড়া এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ওজন কমানোর গতিকে ত্বরান্বিত করে।

৪/ ক্রানবেরি জুস –

এই জুসটিও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের বেশ শক্তিশালী একটি উৎস যা দেহের সংরক্ষিত চর্বির ভাঙ্গনে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।

৫/ গাজরের জুস –

এই পানীয়টি ভরপুর থাকে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যারোটিন এবং ভিটামিন এ, বি১, বি৩, বি৬, সি এবং কে দিয়ে। এবং সেই সাথে এতে থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা দেহের বিপাকক্রিয়াকে উন্নত করে এবং প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

৬/ বিট জুস –

এটি সত্যিকার ভাবেই একটি স্বাস্থ্যকর পানীয় কারণ এতে থাকে উচ্চ পরিমাণে ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, আয়রন, ফসফরাস, জিংক ও খাদ্যআঁশ এবং সেই সাথে ভিটামিন এ, বি৬, সি, ডি এবং কে। ভিটামিন এবং খাদ্যআঁশ দেহ থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে যার ফলে দেহের ওজন কমে।

এই পানীয় গুলো যারা ওজন কমাতে চান শুধু তারাই নন বরং সবার দেহের সুস্থতার জন্যও সাহায্য করে। তাই আর দেরি না করে আজ থেকেই পান করা শুরু করুন এসব পানীয়ের যেকোনো একটি বা একাধিকটি এবং ওজন কমানোর গতিতে করুন ত্বরান্বিত।

লেখক- শওকত আরা সাঈদা(লোপা)
জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ
এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ
খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান (স্নাতকোত্তর)(এমপিএইচ)
মেলাক্কা সিটি, মালয়েশিয়া।

শাহী ঢাকাইয়া বিরিয়ানী

5:13 am
শাহী ঢাকাইয়া বিরিয়ানী

শাহী ঢাকাইয়া বিরিয়ানী - dhakaya-biriyani-recipe

শাহী ঢাকাইয়া বিরিয়ানী

আমরা ঢাকাইয়ারা যত দেশ-বিদেশের রান্নাই করি না কেন উৎসব পার্বনে নিজস্ব ঐতিহ্যবাহী রান্না থাকতেই হবে, আসছে ঈদ সুতরাং আপনার পছন্দের মেনুর সাথে আমাদের শাহী ঢাকাইয়া বিরিয়ানী আইটেমটি রাখতে পারেন, এর মনমাতানো স্বাদে আপনার খাওয়ার আনন্দ বেড়ে যাবে বহুগুনে আসুন দেখে নেই কিভাবে আমি অসম্ভব ফ্লেভারফুল এই শাহী ঢাকাইয়া বিরিয়ানী রান্না করে থাকি।

রেসিপিঃ তানিয়া ইসলাম

গ্রুপ- ক:

    • গরু/খাসীর মাংস ২ কেজি
    • পেয়াজ কুচি ২ কাপ
    • এলাচি ৮ টি
    • বড়/কালো এলাচি ৩টি
    • দারচিনি বড় ২ টুকরা
    • কালো গোল মরিচ ১০/১২ টি
    • লং/লবঙ্গ ৮টি
    • তেজপাতা ৪/৫টি
    • আলুবোখারা ১০টি
    • পোস্তদানা বাটা ১ টেবিল চামচ
    • টকদই ১ কাপ
    • টমোটো কুচি ১/২ কাপ
    • আদা বাটা ২ টেবিল চামচ
    • রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ
    • শুকনো মরিচগুড়ো ১ টেবিল চামচ
    • ধনিয়া গুড়ো ১ টেবিল চামচ
    • জিরা বাটা ১ চা চামচ
    • বেরেস্তা আধা কাপ
    • জায়ফল, জয়ত্রী বাটা আধা চা-চামচ
    • যে কোন বাদাম বাটা ১ টেবিল চামচ
    • ১/২ কেজি আলু বড় টুকরো করে কাটা (লবন ও আদাবাটা দিয়ে ঘি তে ভেজে রাখতে হবে)
    • কাঁচা মরিচ ৫/৬ টি
    • লবন পরিমানমত
    • তেল আধা কাপ

গ্রুপ-খ:

    • বাসমতি/কালোজিরা/চিনিগুড়ো চাল এক কেজি
    • এলাচি ৭/৮টি
    • দারচিনি বড় ২ টুকরো
    • লং ৭/৮টি
    • আদা-রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ
    • সাদা গোল মরিচ ৫/৬টিি
    • শাহী জিরা ১ চা চামচ
    • তেজপাতা ২/৩টি
    • কিশমিশ ১২/১৫টি
    • বেরেস্তা ১ কাপ
    • ঘন লিকুইড দু্ধ ১ কাপ
    • কাঁচা মরিচ ১২/১৫টি
    • কেওড়া জল ২ টেবিল চামচ
    • জাফরান এক চিমটি কেওড়া জলে ভেজানো
    • লবণ পরিমানমত
    • ঘি প্রায় এক কাপ( এক কাপ থেকে একটু কম দিন)
    • ২ কাপ ক্যাপসিকাম কেটে ঘি তে ২/৩ মিনিট হালকা করে ভাজা

( আপনি ক্যাপসিকাম ছাড়া ও করতে পারেন, ‍এটা দরকারী উপাদান না আমাদের ক্যাপসিকাম ভালো লাগে, তাই দিয়েছি)

প্রস্তুত প্রনালী:

গ্রুপ ’’ক’’ এর তেল, আলু, কাঁচা মরিচ ছাড়া মাংসে সব কিছু একত্র করে মেখে ১ ঘন্টা রেখে দিন। এবার প্যান এ তেল গরম করে মাখানো মাংস ‍দিয়ে কষিয়ে পরিমান মত পানি দিয়ে মাংস সিদ্ধ হবার জন্য ঢেকে দিন।

কিছুক্ষণ পর পর মাংস নেড়ে দিবেন না হলে এত মশলা থাকায় মাংসের পাতিলের তলায় লেগে পুড়ে যেতে পারে মশলাগুলো। মাংস সিদ্ধ হয়ে গেলে আলু আর কাঁচা মরিচ দিয়ে কষিয়ে একদম মাখা মাখা করে ফেলুন এবং নামিয়ে রাখুন।

গ্রুপ-খয়ের পর্ব:

এবার চাল ধুয়ে পানিতে ১৫/২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। ১৫/২০ মিনিট পর চাল ঝরিয়ে রেখে পাতিলে ঘি দিন, ঘিতে একে একে এলাচি, দারচিনি, লং,তেজপাতা, আদা-রসুন বাটা, সাদা গোল মরিচ দিয়ে চাল দিয়ে দিন।

এবার ভালো করে চাল ভাজুন, চাল ভাজা হলে ফুটন্ত ৪ কাপ গরম পানি দিন, সাথে দুধ, লবন, শাহী জিরা দিয়ে দিন। বলক আসলে চুলা কমিয়ে ঢেকে দিন, পাতিলে নিচে তাওয়া দিয়ে দিন এতে করে পুড়ে/লেগে যাওয়ার সম্ভবনা থাকবে না, ১৫ মিনিট পর মাংস গুলো অল্প অল্প করে পোলাওয়ের সাথে মিশিয়ে দিয়ে কাঁচা মরিচ, কিশমিশ, কেওড়ার জল, ভেজানো জাফরান ও ক্যাপসিকাম ‍দিয়ে সাজিয়ে আপনার বিরিয়ানীর হাঁড়ির মুখ ভালো করে বন্ধ করে ২০/৩০ মিনিট দমে রাখুন।

২০/৩০ মিনিট পর নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন সালাদ দিয়ে।

টিপসঃ

# বিরিয়ানী বেশি নাড়া চাড়া করবেন না তাহলে চাল ভাঙ্গবে না।
# একটু বড় পাতিলে রান্না করুন, নাড়তে সুবিধা হবে আর স্টিকি ভাব হবে না ঝরঝরে থাকবে বিরিয়ানী 🙂
# চালে লবন সাবধানে ‍দিবেন কেননা মাংসে ও আলুতে লবন আছে।

    • আরো সুন্দর ও সুস্বাদু রেসিপি পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন।